২৮ বছর পরে রায় , বেকসুর আডবানি সহ সকলেই

Subscribe Us

২৮ বছর পরে রায় , বেকসুর আডবানি সহ সকলেই




কৌতুহল ছিলই বাবরি মসজিদ ধ্বংসের মামলার রায় নিয়ে।লখনউয়ের বিশেষ আদালত আজ রায় দিলো এই ২৮ বছরের পুরনো মামলার। বেকসুর খালাস পেলেন প্রবীন নেতা আডবানি সহ সকলেই।দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর এই রায় খুবই তাৎপর্যপূর্ণ। ২৮ বছরের অপেক্ষার পর বাবরি মসজিদ ধ্বংসের মামলায় নির্দোষ প্রমাণিত হলেন লালকৃষ্ণ আডবানি। শুধু তিনি নয়, উপযুক্ত প্রমাণের অভাবে সকল ৩২ অভিযুক্তকে বেকসুর খালাস করে দিয়েছে আদালত।স্বাভাবিকভাবেই এই রায়কে স্বাগত জানিয়েছেন লালকৃষ্ণ আডবানি। 
এদিন আদালত স্পষ্ট জানিয়েছে যে, বাবরি মসজিদ ধ্বংস হয়েছিল বটে। কিন্তু কেউ ষড়যন্ত্র করে তা ভেঙে দেয়নি। সমাজবিরোধীরা মসজিদ ভাঙার চেষ্টা করেছিল, এর নেপথ্যে কোনও রাজনৈতিক নেতার উসকানি কাজ করেনি।অভিযুক্তরা তাঁদের থামাতে চেষ্টা করেছিলেন।
লখনউয়ের বিশেষ সিবিআই আদালত বুধবার বাবরি ধ্বংস মামলার ৩২ জন জীবিত অভিযুক্তকেই বেকসুর খালাস করে দিল। আদালতের বক্তব্য দীর্ঘ ২৮ বছরের তদন্তের শেষেও এই ৩২ জনের বিরুদ্ধে সিবিআই এমন কোনও প্রমাণ বা নথি পেশ করতে পারেনি, যাতে প্রমাণ হয় বাবরি ধ্বংসের পিছনে কোনও রাজনৈতিক নেতার উসকানি ছিল। ফলে এই দীর্ঘ ২৮ বছরের আইনি লড়াইয়ের পর এল কে আডবানী, মুরলীমনোহর যোশী, কল্যাণ সিং, উমা ভারতী, সাক্ষী মহারাজের মতো বিজেপি নেতারা বেকসুর খালাস পেয়ে গেলেন।
বাবরি ধ্বংসের প্রত্যক্ষদর্শীর সংখ্যা অন্তত ৩০-৪০ হাজার। তবে সিবিআই মোট ১০২৬ জনকে সাক্ষী হিসেবে পেশ করার অনুমতি চেয়েছিল। এদের মধ্যেও মাত্র ৩৫১ জন আদালতে গিয়ে সাক্ষী দিয়েছেন। সেই সঙ্গে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে বেশ কিছু নথি এবং ভিডিও ফুটেজ পেশ করেছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা।
লখনউয়ের বিশেষ আদালতে ২৮ বছরের পুরনো এই মামলার রায় ছিল বুধবার। আর সেই রায় মুক্তি পেলেন বিজেপি নেতৃত্ব লালকৃষ্ণ আদবানী, মুরলী মনোহর যোশী ও উমা ভারতী সহ ৩২ জন। যদিও এই তিনজন এদিন আদালতে উপস্থিত ছিলেন না। ভিডিও লিংকের মাধ্যমে তাঁরা যোগ দেন।জানা গিয়েছে, করোনা আক্রান্ত হওয়ার দরুণ আসতে পারেননি উমা ভারতী ও কল্যান সিং। করোনা থেকে সদ্য সেরে ওঠার জন্য আসেননি নৃত্য গোপাল দাসও।আদালতে পেশ করা হয়েছিল সেখানে উপস্থিত সাংবাদিক এবং পুলিশকর্মীদের বক্তব্যও। কিন্তু এর কোনও কিছুতেই প্রমাণ হয়নি যে অভিযুক্তরা কোনওরকম অপরাধমূলক ষড়যন্ত্রে যুক্ত ছিলেন।আডবানি স্বাভাবিকভাবেই এই রায়কে স্বাগত জানিয়েছেন।

Post a Comment

0 Comments

close