বেকার ছেলে-মেয়েদের চাকরি দেওয়ার নামে প্রতরণার অভিযোগে গ্রেপ্তার কলকাতা পুলিসের এক কর্মী

Subscribe Us

বেকার ছেলে-মেয়েদের চাকরি দেওয়ার নামে প্রতরণার অভিযোগে গ্রেপ্তার কলকাতা পুলিসের এক কর্মী


পূর্ব বর্ধমান:- বেকার ছেলে-মেয়েদের চাকরি দেওয়ার নামে প্রতরণার অভিযোগে খণ্ডঘোষের বড় গোপীনাথপুর থেকে কলকাতা পুলিসের এক কর্মী ও তার ছেলেকে গ্রেপ্তার করল পূর্ব বর্ধমানের খণ্ডঘোষ থানার পুলিস। ধৃতদের নাম বিলাস চন্দ্র দত্ত ও শোভরাজ দত্ত।বিলাস বর্তমানে কলকাতার হেয়ারস্ট্রিট থানায় কর্মরত। বুধবার রাতে পুলিস খণ্ডঘোষের তোড়কোনায় তাদের চাকরির প্রশিক্ষণ কেন্দ্র থেকে গ্রেপ্তার করে।সংস্থার বেশকিছু নথিপত্র বাজেয়াপ্ত করেছে পুলিস।
ঘটনার বিষয়ে রায়না থানায় রিয়া কর্মকার অভিযোগ করেন,সরকারি চাকরির পরীক্ষার প্রস্তুতির জন্য তিনি তোড়কোনায় বিলাস ও তার ছেলের প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে ভরতি হন। ভরতির ফি বাবদ তাঁর কাছ থেকে ৩০ হাজার টাকা নেওয়া হয়। এছাড়াও তাঁর শিক্ষা সংক্রান্ত সমস্ত শংসাপত্রের আসল কপি জমা নেয় সংস্থাটি। বিলাস নিজেকে বড় পুলিস অফিসার বলে পরিচয় দেয়। তার উপর মহলে যোগাযোগ রয়েছে বলে সে জানায়। তার নির্দেশ মতো টাকা দিলে সরকারি চাকরির ব্যবস্থা করে দেওয়ার আশ্বাস দেয় সে। সংস্থাটির হস্টেলে থাকাকালীন বিলাসের ছেলে তাঁকে বিভিন্ন সময় অফিসে ডেকে পাঠাত এবং তাঁর সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপনের জন্য বলত। তাতে রাজি না হওয়ায় তাঁর সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করা হয়। বাধ্য হয়ে তিনি হস্টেল ছাড়েন। এরপর তিনি জমা রাখা শংসাপত্র ফেরত চান। তা ফেরত পেতে হলে ৫ লক্ষ টাকা তাঁকে দিতে হবে বলে জানানো হয়। টাকা না দিলে কোনওভাবেই শংসাপত্র ফেরত দেওয়া হবেনা বলে সংস্থার তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়। তাঁর আরও অভিযোগ বিলাস ও তার ছেলে আরও অনেকের কাছ থেকে শংসাপত্র জমা রেখে চাপ সৃষ্টি করে টাকা আত্মসাৎ করেছে। 
তদন্তে নেমে পুলিস জেনেছে, তারা চাকরি চক্রের সঙ্গে জড়িত। চাকরি দেওয়ার নাম করে অনেককে ঠকিয়েছে তারা।তাদের সঙ্গে আরও কয়েকজন এই চাকরি চক্রে জড়িত।বৃহস্পতিবার ধৃতদের বর্ধমান আদালতে পেশ করা হলে ধৃতদের ৭ দিন পুলিস হেফাজত চেয়ে আদালতে আবেদন জানায় পুলিস।আদালত ধৃতদের ৪ দিন পুলিসি হেফাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

Post a comment

0 Comments