রেশনে খাদ্য সামগ্রী কম দেওয়ার অভিযোগ উঠলো পূর্ববর্ধমানের ভাতারে

Subscribe Us

রেশনে খাদ্য সামগ্রী কম দেওয়ার অভিযোগ উঠলো পূর্ববর্ধমানের ভাতারে



সোমবার সকাল থেকে  ভাতারের মাহাচান্দা গ্রামের রেসন ডিলার আসগর আলিকে ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখায় গ্রামবাসীরা।ভাতার থানার পুলিশ যায় গ্রামে।রেশনে চাল  আটা ও গম কম দেওয়া হচ্ছে এই অভিযোগে গ্রামবাসীরা কার্যত জোটবদ্ধ হয়ে বিক্ষোভ দেখায় রেসন ডিলারকে।বিক্ষোভের জেরে এদিন সকাল থেকেই রেসনে খাদ্য সামগ্রী বিলি বন্ধ হয়ে যায়।গ্রামবাসীদের অভিযোগ ডিলার প্রত্যেক উপভোক্তাকে যা প্রাপ্য তার থেকে এক কেজি থেকে দু কেজি কম  করে খাদ্য সামগ্রী বিলি করছে।
স্থানীয় বাসিন্দা মধু খাঁ বলেন, চাল, আটা এমনকি গম সবই কম দেওয়া হচ্ছে। ডিলারকে বললে সে বলছে আগের মাসে ওজনদাঁড়িতে গণ্ডগোলের জন্য তার মাল কমে যায়।শেষ পর্যন্ত বেশ কয়েকজন উপভোক্তাকে বাজার থেকে খাদ্য সামগ্রী কিনে দিতে হয়েছে। তাই সে এবার কম দিচ্ছে। কিন্তু গ্রামবাসীরা রেসন ডিলারের এই যুক্তি বা দাবি মানতে নারাজ।তাদের পরিস্কার বক্তব্য যা প্রাপ্য তাই দিতে হবে। বর্তমানে অন্তঃদ্বয় যোজনার অন্তর্ভুক্ত উপভোক্তারা পরিবার পিছু ১৫ কিলো চাল ও ১৯ কিলো আটা পাবে।পাশাপাশি কেন্দ্রীয় সরকার তাদের জন্য মাথা পিছু ২ কিলো করে চাল দিচ্ছে। অন্যদিকে এসপিএইচএইচ (SPHH) ও পিএইচ এইচ(PHH) প্রকল্পের আওতাধীন উপভোক্তারা মাথা পিছু চার কিলো চাল,তিন কিলো গম ও তিন কিলো আটা পাবে।কিন্তু গ্রামবাসীদের অভিযোগ রেসন ডিলার মাথা পিছু এক কেজি করে খাদ্য সামগ্রী কম দিচ্ছে। গ্রামের বাসিন্দা হরিসাধন হাজরা বলেন, কাউকে না জানিয়ে নিজের খেয়াল খুশী মত রেসনে খাদ্য সামগ্রী বিলি করা হচ্ছে। ডিলার কাউকে এই বিষয়ে জানায় নি।


গ্রামবাসীদের অভিযোগ স্বীকার করে নেন রেসন ডিলার আসগর আলি।তিনি বলেন, আগের মাসে তার ওজন দাঁড়িতে গণ্ডগোলের জন্য চাল,গম ও আটা সবই কম পড়ে যায়। শেষ পর্যন্ত দোকান থেকে খাদ্য সামগ্রী কিনে এনে উপভোক্তাদের দিতে বাধ্য হই।তাই এবার লোকসান মেটাতে মাথা পিছু খাদ্য সামগ্রী কম দেওয়া হয়েছে।  তবে তিনি গ্রামবাসীদের চাপে পড়ে পিছু হটেন।তিনি বলেন তাঁর ভুল হয়ে গেছে।ঘন্টা চারেক পর ব্লকের খাদ্য আধিকারিক গ্রামে গেলে ও উপভোক্তাদের সঠিক পরিমাণে খাদ্য সামগ্রী বিলির কথা বলায় গ্রামবাসীরা বিক্ষোভ তুলে নেয়।

Post a Comment

0 Comments

close