পূর্ব বর্ধমানের রামপুরের গুপ্ত বাড়ি লক্ষীপুজো এখন সর্বজনীন পুজোর রূপ নিয়েছে

Subscribe Us

পূর্ব বর্ধমানের রামপুরের গুপ্ত বাড়ি লক্ষীপুজো এখন সর্বজনীন পুজোর রূপ নিয়েছে



পূর্ব বর্ধমানের ভাতার থানার রামপুরের গুপ্ত বাড়ি লক্ষীপুজো সর্বজনীন পুজোর রূপ নিয়েছে।এখানে প্রতিবার ধুমধামে লোক খাওয়ানো, বস্ত্র বিতরণ থেকে  সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান সবই হয়।করোনার প্রকোপে এবারে আড়ম্বর কম।তবু এ পুজো আজ আর নিছক বাড়ির পুজো নেই।এটা এখন  গোটা গ্রামের পুজো।
কীভাবে হল এই পুজোর এত জনপ্রিয়তা?এমনিতে কোজাগরী লক্ষ্মীপুজো প্রধানত পূর্ববঙ্গের মানুষের অধ্যুষিত এলাকায় বেশি প্রচলিত।স্বাধীনতার পর এ বঙ্গেও কোজাগরী পুজোর প্রচলন বাড়ে। ভাতারের এরুয়ার গ্রাম পঞ্চায়েতের রামপুর গুপ্ত বাড়ির পূজা এবছরই ৬৫ বছরে পদার্পণ করল। এ বাড়ির প্রবীণ সদস্য চন্দন গুপ্ত জানান "আজ থেকে ৬৫ বছর আগে এর শুরু। গুপ্ত বাড়ির  শিবদাস গুপ্ত এ পুজোর জনক।ছোটবেলায় পাশের গ্রাম কাশীপুর থেকে একটি ছোট লক্ষ্মীঠাকুর কিনে আনেন। একটি ঝুড়িতে লক্ষী ঠাকুরকে ভরে মাথায় করে বাড়িতে এনেছিলেন।বড়রা তখন তা  প্রতিষ্ঠা করেছিলেন।" তখন থেকেই হয়ে আসছে গুপ্ত বাড়িতে লক্ষ্মীপুজো। দিনেদিনে এই পুজো গ্রামের সসর্বজনীন পুজার রূপ নিয়েছে। এবাড়ির কর্তা বিশ্বনাথ গুপ্ত জানান, "প্রতিবছরই মহা ধুমধামে পালিত হয় গুপ্ত বাড়ির লক্ষ্মী পূজা।নামটা গুপ্ত বাড়ির লক্ষ্মীপূজা হলেও বর্তমানে এই পূজা সর্বজনীন।গ্রামের অনেক মানুষ এই পুজোয় অংশগ্রহণ করেন। ১১০ জন দুস্থ মানুষকে বস্ত্র বিতরণ করা হলো আজ। প্রতিবছর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এবছর করোনাভাইরাস এর  প্রকোপের জন্য তা করা হচ্ছে না।তবে সোস্যাল ডিসটেন্স মেনে ছ' শো গ্রামবাসীকে ভোগ বিতরণ, ঘরোয়া অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হচ্ছে। বাড়ির মেয়ে অনিমা যশের আক্ষেপ 'করোনার কারণে পুজো এবারে ম্লান।" মায়ের কাছে তারা চান এ দুর্যোগ কেটে যাক।

Post a Comment

0 Comments

close