সম্প্রীতির নিদর্শন, মন্দির নির্মাণে অর্থ সাহায্য মুসলিম মহিলার

Subscribe Us

সম্প্রীতির নিদর্শন, মন্দির নির্মাণে অর্থ সাহায্য মুসলিম মহিলার



পূর্ব বর্ধমানের গলসিতে মন্দির নির্মাণে অর্থ সাহায্য করলেন ফজিলা বেগম নামে এক মুসলিম।কাজ বন্ধ হয়ে যাওয়া রক্ষাকালী মন্দির নির্মাণে ত্রিশ হাজার টাকা দিয়ে সম্প্রীতির নজির সৃষ্টি করলেন তিনি। গলসি ১ নম্বর ব্লকের রাইপুর গ্রামের বাসিন্দা ফজিলা বেগম। পাশাপাশি তিনি গলসি ১ নম্বর পঞ্চায়েত সমিতির পূর্ত ও পরিবহন দপ্তরের কর্মাধ্যক্ষ। তবে এই প্রথম নয় এর আগেও ফজিলা বেগম বিভিন্ন সামাজিক কাজে এগিয়ে এসেছেন। টাকা পয়সা ছাড়াও বিভিন্ন ভাবো সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন তিনি। গলসির লোয়া রামগোপালপুর পঞ্চায়েতের করকোনা গ্রামে একটি রক্ষাকালি মন্দির তৈরী করছিলেন গ্রামবাসীরা।অর্ধেক কাজ হয়ে যাওয়ার পর অর্থের অভাবে সেই কাজ বন্ধ হয়ে যায়। দেশ জুড়ে করোনা ও লকডাউনের জেরে সাধারণ মানু‌ষের উপার্জন বন্ধ থাকায় আর্থিক সংকট তৈরি হয়। আর তার জন্যই মন্দির নির্মাণের কাজ বন্ধ হয়ে যায়। মন্দির নির্মাণের কাজ বন্ধ হয়ে পড়েছে টাকার অভাবে জানতে পারেন ফজিলা বেগম। তারপরই তিনি উদ্যোগী হন।  তিনি মন্দির কমিটির সদস্যদের সঙ্গে যোগাযোগা করেন।গ্রামের বাসিন্দারাও আর দেরি করেন নি। মন্দিরের কাজ সম্পূর্ণ করতে মন্দির কমিটির সদস্যদের হাতে তিনি ত্রিশ হাজার টাকার একটি চেক তুলে দেন ।ত্রিশ হাজার টাকার চেক দেওয়ার পাশাপাশি  পুরো মন্দির তৈরিতে সব রকম সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছেন ফজিলা বেগম।



ফজিলা বেগম বলেন, করকোনা গ্রামে মন্দির নির্মাণ হচ্ছে কিন্তু আর্থিক অনটনের জন্য কাজ বন্ধ হয়ে যায়।তাই সামান্য কিছু টাকা সাহায্য করলাম। স্থানীয় বাসিন্দা জাহির আব্বাস মণ্ডল বলেন ফজিলা বেগম যা ভাতা পান সেই টাকা তিনি বিভিন্ন সামাজিক কাজে দিয়ে দেন।এটা নতুন নয়, তিনি বরাবরই সাহায্য করেন এই ভাবে।গ্রামের বাসিন্দারাও খুশী।করকোনা গ্রামের বাসিন্দা সত্যনারায়ণ বাগদি বলেন তাঁরা এই সাহায্য পেয়ে খুবই আনন্দিত।টাকার অভাবে মন্দির তৈরির কাজ আটকে পড়েছিল।যাইহোক আবার কাজ শুরু হবে।

Post a Comment

0 Comments

close