বিষ্ণুপুরে চায় পে চর্চাতে বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ

Subscribe Us

বিষ্ণুপুরে চায় পে চর্চাতে বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ



বিষ্ণুপুরে চায় পে চর্চাতে বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। পরে বিষ্ণুপুর স্টেডিয়াম গিয়ে শরীরচর্চা। এরপর বিষ্ণুপুরে ছিন্নমস্তা মন্দিরে গিয়ে পূজো দেন।পরে  দিলীপ ঘোষ সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে পাহাড়ের প্রসঙ্গ তুলে একহাত নেন রাজ্য সরকারকে।তিনি বলেন, যাদের অত্যাচারে লোক পাহাড় ছাড়া হয়েছিল। এখনো পাহাড়ের জীবন শান্ত হয়নি।বহু মানুষ পাহাড় ছাড়া।এখনো বহু মানুষের কাজকর্ম নেই।খাওয়া দাওয়া নেই।এরা এক সময় মমতা ব্যানার্জির বিরুদ্ধে লড়াই করেছিল।সবাই রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় অভিযুক্ত।আজ মমতা ব্যানার্জি এত দুর্দশা জঙ্গলমহলের ছত্রধর মাহাতোকে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা দিয়েছিল তাকে নেতা বানিয়েছেন।যাদের বিরুদ্ধে পাহাড়ে লড়াই করেছিল যারা পাহাড়ে উৎপাত এর জন্য দায়ী তাদেরকে নেতা বানাচ্ছেন। তাদের হাত ধরে আজ পাহাড়ে উঠতে চাইছেন।এত দুর্দশা মমতা ব্যানার্জির বাংলার মানুষ দেখছে।মানুষ তার যথার্থ জবাব দেবে বলেই দাবি রাজ্য সভাপতি।
আগামী ৫ নভেম্বর দক্ষিণবঙ্গের বিজেপির জেলা নেতৃত্বের সঙ্গে বৈঠকে মিলিত হওয়ার জন্য ও আগামী ২০২১ এর বিধানসভা নির্বাচনের রূপরেখা ঠিক করতে বাঁকুড়ায় আসছেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি তথা রাষ্ট্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ সেই বৈঠকের অনুমতি নিয়ে রাজ্য সরকারের গড়িমসি প্রসঙ্গে প্রশ্নের উত্তরে দীলিপবাবু বলেন,এটা প্রথমবার নয়। আপনারা জানেন উনি এখন হোম মিনিস্টার এখন চাইলেও আটকাতে পারবেনা অফিসাররা।আজ সেই কথাই বলছেন মাননীয় গভর্নর।যে পার্টির ক্যাডার এর মত কাজ করছে রাজ্যের আইএএস আইপিএস অফিসার রা। তারা সংবিধানের শপথ নিয়েছে। দু-তিন বছর ধরে আমাদেরকে মাঠ দেওয়া হয়নি।হল দেওয়া হয় না।অমিত শাহ হেলিকপ্টারের পারমিশন দেওয়া হয়নি। প্রশাসনকে রাজনৈতিক কাজে লাগিয়ে চেষ্টা করেছে বিজেপিকে আটকানোর, পারেনি। আমরা আজ ১৮ টা সিট জিতেছি। আজ সারা পশ্চিমবঙ্গের মানুষ বিজেপির সঙ্গে আছে।সিপিএম প্রশাসনকে কাজে লাগাতো, পুলিশকে কাজে লাগাতে। কিন্তু এমনিভাবে নয়। আজ প্রশাসন টাই একটা পলিটিক্যাল পার্টির এজেন্ট হয়ে গেছে।রাজ্যের পরিবহনমন্ত্রী তথা তৃণমূল নেতা শুভেন্দু অধিকারীর বিজেপিতে যোগদান প্রসঙ্গ এড়িয়ে যান রাজ্য সভাপতি। তিনি বলেন, সেটা ওনাকে জিজ্ঞেস করুন আমরা দরজা খুলে দেখেছি সবার জন্য।

Post a Comment

0 Comments

close