নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বসত বাড়িতে বালি বোঝাই লরি উল্টে মৃত তিন, জখম ১

Subscribe Us

নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বসত বাড়িতে বালি বোঝাই লরি উল্টে মৃত তিন, জখম ১

 


রাস্তার পাশে বাড়িতে ওভারলোড বালি বোঝাই লরি উল্টে  মৃত্যু হল একই পরিবারের ৩ জনের । জখম হয়েছে আরও ১ জন ।  মৃতরা সম্পকর্কে মা, ছেলে ও মেয়ে। বৃহস্পতিবার রাতে ভয়াবহ এই দুর্ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব বর্ধমানের জামালপুর থানার জ্যোৎশ্রীরাম পঞ্চায়েতের মুইদিপুর এলাকায় । মৃতরা হলেন সন্ধ্যা বাউরি (৩০), রিঙ্কু বাউরি  (১৪) ও রাহুল বাউরি(১২) । জখম হয়েছে সন্ধ্যা বাউরির স্বামী প্রশান্ত বাউরি ।  মৃত ও জখমরা সকলে মুইদিপুর গ্রামেরই বাসিন্দা।মর্মান্তিক  মৃত্যুর খবর জানাজানি হতেই মুইদিপুর এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে জামালপুর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে পুলিশের উপরেও জনরোষ আছড়ে পড়ে । পুলিশের গাড়িতেও  ভাঙচুর চালায় উত্তেজিত জনতা। কয়েকজন পুলিশ কর্মী জখম হন।পরে জনরোষ এলাকার বালিখাদানেও গিয়ে পড়ে। উত্তেজিত মানুষজন ওই এলাকার বালিখাদানেও চড়াও হয় ।তারা  বালি খাদানের  অফিসে আগুন ধরিয়ে দেয় বলে জানা গেছে  । উত্তেজনা নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশকে লাঠিচার্জ করতে হয় ।পরে অতিরিক্ত পুলিশ বাহিনী ঘটনাস্থলে পৌঁছে কোন রকমে বিক্ষুব্ধ মানুষজনকে হঠিয়ে দিয়ে মৃত ও  জখমদের উদ্ধার  করে ।স্থানীয়রা জানিয়েছেন , মুইদিপুর ও সংলগ্ন  এলাকায় অবৈধ কয়েকটি বালি খাদান চলছে । সেই সব বালিখাদান থেকে  দিনে ও রাতে শ'য়ে শ'য়ে ট্রাক ও লরিতে বালি লোড হয় । ওভারলোড বালির লরি বাঁধের রাস্তা ধরে হুগলির চাঁপাডাঙ্গা হয়ে কলকাতা চলে যায় ।বেশ কয়েকদিন ধরে মুইদিপুর এলাকার বাঁধের রাস্তা দিয়ে ওভারলোড বালির লরির যাতায়াত বেড়ে যাওয়ায় এলাকার মানুষজন বালির লরি আটকে রেখে বিক্ষোভও দেখিয়েছিলেন ।স্থানীয়দের অভিযোগ যখনই মানুষ প্রতিবাদে সরব হয় তখনই পুলিশ গ্রামে গিয়ে ব্যবস্থা নেবার আশ্বাস দিয়ে আটকে রাখা লরি ছাড়িয়ে  দায় সারে । 
এদিন ওভারলোড বালির লরি নিয়ে মদ্যপ চালক বাঁধের রাস্তা ধরে যাচ্ছিল । এলাকাবাসীর অভিযোগ মদ্যপ অবস্থায়  লরি চালানোর সময়ে চালক নিয়ন্ত্রণ হারায় বাঁধের রাস্তার ধারে থাকা ২টি বাড়ির উপর   উল্টে যায় । দুর্ঘটনাস্থলেই  একই পরিবারের তিন জনের মৃত্যু হয় । ১ জন গুরুতর জখম হয়েছেন। দুর্ঘটনার পর মদ্যপ চালক পালালেও খালাসি ধরা পড়েছে বলে এলাকার লোকজন জানিয়েছেন ।উত্তেজনা থাকায় রাতে মুইদিপুর এলাকায় বিশাল পুলিশ ও র‍্যাফ বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে ।এই ঘটনায় গোটা গ্রাম থমথমে।গ্রামের মানুষ এককাট্টা। 
শেষ পর্যন্ত পুলিশ আজ অর্থাৎ শুক্রবার সকালে মৃতদেহ উদ্ধার করে।তিনটি মৃতদেহরই ময়নাতদন্ত হবে বর্ধমান পুলিশ মর্গে।এসডিপিও (দক্ষিণ) আমিনুল ইসলাম খান বলেন, বালি বোঝাই ট্রাক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাড়ির উপর উল্টে যায়।দুর্ঘটনাস্থলেই মা, ছেলে ও মেয়ের মৃত্যু হয়।দু'একজন  পুলিশকর্মীও জখম হয়েছে। তবে তা মারাত্মক নয়।গ্রামের লোকজনের সঙ্গে আলোচনা করেই মৃতদেহ নিয়ে যাওয়া হয়েছে। বলপ্রয়োগ করে নয়।
তবে গ্রামের বাসিন্দারা জানান প্রতিদিনই ওভারলোডের বালি বোঝাই ট্রাক যাতায়াত করে।কিন্তু পুলিশ প্রশাসন কোন ব্যবস্থা নেয় নি।আর তার পরিণতি এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনা।
অন্যদিকে বিজেপির অভিযোগ ওভারলোডের বালি বোঝাই ট্রাক যাতায়াতের ক্ষেত্রে প্রশাসন সরাসরি যুক্ত আছে।

Post a Comment

0 Comments

close