আলুর মত পেঁয়াজও সরকারি সহায়ক মূল্য বিক্রির দাবী করলেন পূর্ব বর্ধমানের ভাতারের বাসিন্দারা

Subscribe Us

আলুর মত পেঁয়াজও সরকারি সহায়ক মূল্য বিক্রির দাবী করলেন পূর্ব বর্ধমানের ভাতারের বাসিন্দারা



আলুর মত পেঁয়াজও সরকারি সহায়ক মূল্য বিক্রির দাবী করলেন পূর্ব বর্ধমানের ভাতারের বাসিন্দারা। দামে লাগাম পড়ানো যাচ্ছে না পেঁয়াজের।ঝাঁজে নয় পেঁয়াজের দামে চোখে জল আসছে ক্রেতাদের। তাই এবার সহায়ক মূল্য পেঁয়াজ দেওয়ার দাবি জানাচ্ছেন ভাতার ব্লকের মানুষজন। 
এলাকার বাসিন্দা আবুল কালাম বলেন, সরকার আলুর মত পেঁয়াজেও ভর্তুকি দেওয়ার ব্যবস্থা করুক।ভাতার কৃষক বাজারে কিছুদিন আগেও পেঁয়াজের দাম ছিল ৪৫ থেকে ৫০ টাকা কিলো।বর্তমানে পেঁয়াজের দাম বেড়ে ৬৫ থেকে ৭০ টাকা  কিলো।ব্যবসায়ীদের শঙ্কা নতুন পেঁয়াজ বাজারে আসতে দেরী হলে পেঁয়াজের দাম আরো বাড়বে। লাগাতার  আলু ,পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধির কারণে নাভিশ্বাস সাধারণ মধ্যবিত্তের। বিশেষ করে বাঙালীর হেঁসেলে আলু, পেঁয়াজ খুবই গুরুত্বপূর্ণ। রান্নায় অন্যান্য উপকরণের চেয়ে আলু ,পেঁয়াজ বেশি প্রয়োজন।আলু, পেঁয়াজের দাম বেশী হলেও তুলনায় ভাতার কৃষক বাজারে অন্যান্য সব্জির দাম বেশ কম।তুলনায় আপেলের দাম কম এখন।তাই আপেল কিনে বাড়ি  ফিরছেন অনেকে। কারণ সব্জির দামের থেকে ফলের দাম অনেকটাই কম বলে জানাচ্ছেন ক্রেতারা।
ভাতার কৃষক বাজারে সহায়ক মূল্যে পঁচিশ টাকা কেজি দরে আলু বিক্রি হলেও দীর্ঘ লাইনের কারণে সময়মতো বাজার করে বাড়ি ফিরতে পারছেন না ক্রেতারা।খোলা বাজারে আলুর দাম ৪০ থেকে ৪৫ টাকা,  পেঁয়াজের দাম ৬০ থেকে ৭০ টাকা।কবে আলু, পেঁয়াজের দাম নাগালের মধ্যে আসবে, সেই আশায় দিন গুনছেন মধ্যবিত্ত।
দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি মানুষের স্বাভাবিক জীবন ধারণের পথে বাধা সৃষ্টি করছে।বিশেষত দৈনন্দিন জীবনে প্রয়োজনীয় আলু এবং পেঁয়াজ কিনতে মানুষকে এখন মাথার ঘাম পায়ে ফেলতে হচ্ছে বলে জানান রায়নার বাসিন্দা অমল দে।  বাজারে অন্যান্য সবজির দাম মোটামুটি আয়ত্তের মধ্যে।নতুন আলু না উঠলে আলুর দাম কমার কোনো আশ্বাস দিতে পারছেন না ব্যবসায়ীরা। ব্যবসায়ী মুজিবর মল্লিক বলেন, আলুসিদ্ধ ভাত খাওয়াও এখন বিলাসিতায় পরিণত হয়েছে।

Post a Comment

0 Comments

close