কোভিড বিধি উধাও,সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে কালঘাম ছুটছে রেল প্রশাসনের

Subscribe Us

কোভিড বিধি উধাও,সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে কালঘাম ছুটছে রেল প্রশাসনের



কোভিড বিধি উধাও।ভিড় নিয়ন্ত্রণে বেলাগাম।সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে কালঘাম ছুটছে রেল প্রশাসনের।যাত্রীদের দাবি অবিলম্বে লোকাল ট্রেনের সংখ্যা বাড়ানো হোক।তবেই যাত্রীদের ভিড় এড়ানো যাবে। বুধবার বর্ধমান হাওড়া মেইন ও কর্ড শাখায় দীর্ঘ আটমাস পর লোকাল ট্রেন চলাচল শুরু হয়েছে। গতকাল তবুও খানিকটা হলেও প্রশাসনের আয়ত্বে ছিল ভিড়।বৃহস্পতিবার ভীড়ে ফুৎকারে উড়ে গেছে কোভিড বিধি। বর্ধমান হাওড়া মেইন ও কর্ড শাখায় আপাতত প্রথম পর্যায়ে ৩৮ টি লোকাল ট্রেন চালু করা হয়েছে রেলের পক্ষ থেকে। ট্রেনযাত্রী তারাপদ দে বলেন চলন্ত ট্রেনে সামাজিক দূরত্ব তো দূরের কথা। কোভিড বিধি মানা হচ্ছে না।যাত্রীরা ঘা ঘেঁষাঘেষি করেই সিটে বসছেন। সিটের মাঝখানে ক্রশ চিহ্ন দেওয়া থাকলেও অধিকাংশ ক্ষেত্রে যাত্রীরা তা মানছেন না।গতকাল বেলা গড়াতেই যাত্রীদের ভিড় বাড়তে থাকে ট্রেনে। আর এদিন কার্যত গোটা বিষয়টি একেবারে বেআব্ররু হয়ে গেছে। হাওড়াগামী ট্রেন তো বটেই,যে লোকাল হাওড়া থেকে বর্ধমান স্টেশনে ঢুকছে তাতে হাজার হাজার যাত্রী নামছেন। ফলে ভিড় এড়ানো বা নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে না। নিত্যযাত্রী সমিতির সদস্য তথা ব্যবসায়ী পল্লব দাস বলেন লোকাল ট্রেনের সংখ্যা না বাড়ালে কোন ভাবেই ভীড় এড়ানো সম্ভব নয়। কারণ লোকাল ট্রেন চালু হয়েছে প্রায় আট মাস পর।এতদিন মানুষজন কার্যত ঘরবন্দী হয়ে ছিলেন। তাঁরা এখন গন্তব্যে বা কর্মস্থলে যাবেই। সুতরাং ট্রেনের সংখ্যা বাড়িয়ে যাত্রীদের ভিড় কমানো সম্ভব হবে।না হলে কোভিড বিধি কোন ভাবেই মানা সম্ভব নয়। যাত্রী মহম্মদ সাবির আলি বলেন কম ট্রেন চললে তো যাত্রীদের ভিড় বাড়বেই। সবাই তো ট্রেনে চাপবে।কাকে আটকাবে রেল।
এই বিষয়ে পূর্ব রেলের মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক নিখিল চক্রবর্তী বলেন, ট্রেনের সংখ্যা বাড়ানো হচ্ছে। রেলের পক্ষ থেকে আগেই বলা হয়েছিল পরিস্থিতি বুঝে লোকাল ট্রেন বাড়ানো হবে।গতকালই যা লোকাল ট্রেন চলার কথা ছিল তার থেকে বেশি লোকাল চলাচল করেছে।সুতরাং ভীড় এড়াতে রেল প্রশাসন সব রকম ভাবে প্রস্তুত।

Post a Comment

0 Comments

close