শাসক দলের গোষ্ঠী সংঘর্ষের পর থানা ঘেরাও

Subscribe Us

শাসক দলের গোষ্ঠী সংঘর্ষের পর থানা ঘেরাও



শাসক দলের গোষ্ঠী সংঘর্ষের পর থানা ঘেরা হল।শুক্রবার দুপুরে দুয়ারে সরকার ক্যাম্পে তৃণমূল কংগ্রেসের দুই বিবদমান গোষ্ঠী সংঘর্ষ হয় বর্ধমানের লোকো কলোনীতে।সংঘর্ষের ঘটনায় দুই গোষ্ঠীরই বেশ কয়েকজন জখম হয়।  বর্ধমানের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের রেলওয়ে বিদ্যাপীঠ স্কুলে দুয়ারে সরকার ক্যাম্প বসেছিল এদিন। সেখানেই ক্যাম্পের দখলদারি নিয়ে জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক  খোকন দাসের অনুগামীদের সঙ্গে  বিবাদ বাঁধে ওয়ার্ডের প্রাক্তন কাউন্সিলর মহম্মদ সেলিমের অনুগামীদের মধ্যে। 
 এলাকার প্রাক্তন তৃণমূল কংগ্রেসের কাউন্সিলর মহম্মদ সেলিমের নেতৃত্বে খোকন দাসের অনুগামী শিবু ঘোষকে মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। শিবু ঘোষ যখন তার বৌদি ও স্ত্রীকে নিয়ে বিদ্যাপীঠ  স্কুলে স্বাস্থ্য সাথীর কার্ডের জন্য দাঁড়িয়ে ছিল। ওই সময়ে মহম্মদ সেলিম তার দলবল নিয়ে তাকে আক্রমণ করে। মার খাওয়ার পর এলাকার একটি বাড়িতে শিবু ঘোষ আশ্রয় নিলে সেখানেও ঢুকে মারধর করা হয়। গতরাতে সদ্য তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দেওয়া আইনুল হক,সেলিম ও মেহবুব রহমান মিলে প্ররিকল্পনা করে এখানে সন্ত্রাস সৃষ্টি করে বলে অভিযোগ খোকন দাসের ।তাদের দলীয় কার্যালয়ে হামলা চালায় ও ভাঙচুর করে। গত লোকসভা ভোটে এখানে তৃণমূল কংগ্রেস ১৭০০ ভোটে পরাজিত হয়।সেলিম, আইনুল হক সবাই এক সঙ্গে আগে সিপিএম করতো।তারা এখন তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে। 
খোকন দাস  পুলিশকে হুঁশিয়ারি দেন যদি বিকেলের মধ্যে অভিযুক্তদের না ধরা হয়।তাহলে তারা থানা ঘেরাও করবেন।পুলিশ প্রশাসন ঠিক মত কাজ করছে না বলে তিনি অভিযোগ করেন।
অন্যদিকে প্রাক্তন কাউন্সিলর মহম্মদ সেলিম বলেন দুয়ারে সরকার ক্যাম্পে হাজির হয়ে শিবু ঘোষের নেতৃত্বে কয়েক জন দাদাগিরি করছিল।এলাকার বাসিন্দারা প্রতিবাদ করেন।এই নিয়ে প্রথমে বাদানুবাদ হয়।পরে স্থানীয় বাসিন্দারা তাদের তাড়া করলে ছুটে পালাতে গিয়ে কেউ আহত হতে পারে।কেউ তাদের মারধর করে নি।আর ওখানে কোন তৃণমূল কংগ্রেসের পার্টি অফিস নাই।একটা ঘরে শিবু ঘোষ দলবল নিয়ে মদ খায়। শিবু এলাকার বাসিন্দা নয়।সে বহিরাগত। 
শিবু ঘোষের দাবী সেলিমের নেতৃত্বে একদল যুবক তাদের উপর হামলা করে। মারধর করে।
এদিন সন্ধ্যায় খোকন দাসের নেতৃত্বে থানা ঘেরা হয়।অভিযুক্ত মহম্মদ সেলিমকে গ্রেপ্তারের দাবীতে দীর্ঘক্ষণ বর্ধমান থানার সামনে বিক্ষোভ চলে।ঘন্টা দেড়েক বিক্ষোভ চলার পর পুলিশী আশ্বাসে ঘেরাও কর্মসূচি উঠে যায়।

Post a comment

0 Comments