পূর্ব বর্ধমানের কুড়মুনের জনসভায় দিলীপ ঘোষ

Subscribe Us

পূর্ব বর্ধমানের কুড়মুনের জনসভায় দিলীপ ঘোষ


সারা ভারতবর্ষে ৯ কোটির বেশী কৃষক ১৪ হাজার টাকা পেয়েছে।আমরা আন্দোলন করেছি বলে এখন দিদিমণি মানতে বাধ্য হয়েছে।দিদি চাইছেন কৃষকদের একাউন্টে নয়।টাকা দিতে হবে তার হাতে।কিন্তু ওই টাকা দিদির হাতে গেলেই সব কাটমানি হয়ে যাবে।মোদীজী দেখলেন আমফানের টাকা সব আত্মসাৎ করেছেন দিদির ভাইয়েরা।ক্ষতিগ্রস্তদের টাকা চলে গেছে তৃণমূল কংগ্রেসের নেতাদের একাউন্টে। রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ এমনই মন্তব্য করলেন।মঙ্গলবার পূর্ব বর্ধমানের কুড়মুনের হাটতলায় জনসভায় তিনি উপস্থিত ছিলেন। 
স্বাস্থ্যসাথী কার্ড নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে কটাক্ষ করেন দিলীপ ঘোষ।এসব ঢোপের চপ।লকডাউনের সময় মোদীজী বাড়ি বাড়ি রেশন পাঠিয়ে দিয়েছে।সেই রেশনের চাল,ডাল,গম তাও পাচার করা হয়েছে। তৃণমূল নেতারা সেই সব রেশনের সামগ্রী গায়েব করেছে।রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রীকে চাল চোর বলেন তিনি।রেশনের ভালো চাল,গম বাংলাদেশে পাচার করা হয়েছে। রাজ্যের সব জেলগুলো পরিস্কার করা হচ্ছে। আসলে মে মাসের পর সব জেলে যাবে।দিদির ভাইয়ের জন্য জেল ঠিক করা হচ্ছে। লক্ষ্মীরতন শুক্লের পদত্যাগ নিয়ে তিনি বলেন প্রতিদিনই উইকেট পড়ছে।দিদির কাছে  ফোন এলেই দিদি ভাবেন আবার কেউ পদত্যাগ করেছে।রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় নিয়ে দিদি ভাবছেন ও পদত্যাগ করবে না। রাজীব তো আমার খাঁটি লোক। 
স্কুলে শিক্ষক নাই।ছেলেরা স্কুলে যাচ্ছে আর মিড ডে মিলের ভাত খেয়ে চলে আসছে।বিশ্বভারতীকে নিয়ে নোংরামী করছে রাজ্য সরকার। সেখানকার গেট বুলডোজার দিয়ে ভেঙে দেওয়া হয়েছে। মে মাসে নির্বাচন আসছে।আপনারা হাতে কার্ড নিয়ে বুথে যাবেন। এবার আর দিদির পুলিশ বুথে থাকবে না। দিদির ভাইয়েরা বেশী বাড়াবাড়ি করলে ডাণ্ডা মেরে ঠাণ্ডা করে দেবে।
সদ্য দলত্যাগী সাংসদ সুনীল মণ্ডল সভায় উপস্থিত ছিলেন। বিনা পুজির ব্যবসাদার আইপ্যাক।পিকেকে শকুন বলে কটাক্ষ করেন সাংসদ সুনীল মণ্ডল। আমি আর শুভেন্দু বাংলায় তৃণমূল কংগ্রেসের ঘন্টা বাজিয়েছি। তৃণমূলের বঙ্গধ্বনি শুরু হয়েগেছে।মন্ত্রীসভা থেকে ও জেলা সভাপতির পদ থেকে মন্ত্রীরা পদত্যাগ করেছেন। শুরু হয়ে গেছে বঙ্গধ্বনি যাত্রা।মহিলাদের উদ্দেশ্যে আই প্যাকের লোকেদের ঝাঁটিয়ে বিদায় করার নিদান দেন সাংসদ সুনীল মণ্ডল। 
লক্ষ্মীরতন শুক্লের পদত্যাগ নিয়ে দিলীপ ঘোষ বলেন প্রতিদিনই উইকেট পড়ছে। দিদিমণি তাই ভয় পেয়েছে। তাই তার গুণ্ডাদের লেলিয়ে দিয়েছে।তারা বিজেপি কর্মীদের গাড়ি ভাঙছে,বাড়ি ভাঙছে।
এদিনের সভায় উপস্থিত ছিলেন বালুরঘাটের সাংসদ সুকান্ত মজুমদার, বিজেপি জেলা সভাপতি সন্দীপ নন্দী, রাজ্য সহসভাপতি রাজু ব্যানার্জী।

Post a Comment

0 Comments

close