সরকারকে 'আস্থা' প্রমাণ করার দাবি জানালেন রাজ্যের বিরোধীরা

Subscribe Us

সরকারকে 'আস্থা' প্রমাণ করার দাবি জানালেন রাজ্যের বিরোধীরা



নিজস্ব সংবাদদাতা :  সরকারে থাকার যোগ্যতা রয়েছে, প্রমাণ করুক তৃণমূল! বছরের শেষ লগ্নে নিশানা বাম- কংগ্রেসের। সরকারের বিরুদ্ধে বিধানসভাকে এড়িয়ে যাওয়ার অভিযোগ তুলল রাজ্যের বাম ও কংগ্রেস জোট ।  সাংবাদিক সম্মেলন করে এই অভিযোগ তোলেন বিধানসভায় বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নান এবং বাম পরিষদীয় নেতা সুজন চক্রবর্তী। 'কতজন মন্ত্রী বিধায়ক তৃণমূলে আছে তা জানেই না মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাই সরকার বিধানসভায় নিজের সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণ দিক"। এমনই দাবি তুলেছে বাম- কং জোট । বিধানসভার অধিবেশন ডেকে, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আস্থা ভোটের সম্মুখীন হতে বলল বামফ্রন্ট ও কংগ্রেস পরিষদীয় দল। বিধানসভার শীতকালীন অধিবেশন শুরুর আগেই সরকারের ওপর চাপ তৈরি করার কৌশল নিল তাঁরা। দুই বিরোধী দলের অভিযোগ, করোনা আবহের মধ্যেই মানুষ স্বাভাবিক ছন্দে ফেরার চেষ্ঠা করছে। অফিস কাছারি, বাজার, হোটেল রেস্টুরেন্ট খোলা। অথচ রাজ্য সরকার বিধানসভার অধিবেশন বসাতে নারাজ। এইভাবে সরকার জনপ্রতিনিধিদের কন্ঠরোধ করার চেষ্ঠা করছে বলে অভিযোগ করেন বিরোধী দলনেতা আবদুল মান্নান।  বাম পরিষদীয় দলনেতা সুজন চক্রবর্তীর দাবি, অনেক রাজ্যই ধান-সহ কৃষিজাত পণ্যের ন্যূনতম সহায়ক মূল্য বেঁধে দিয়েছে। এ রাজ্যে তা হয়নি। এখনই এই বিষয়ে সরকারের সিদ্ধান্ত নেওয়ার প্রয়োজন রয়েছে বলে মনে করেন তিনি। তাঁর অভিযোগ, যেভাবে কেন্দ্রীয় সরকার লোকসভার অধিবেশন ডাকছে না। রাজ্যও সেইপথে হাঁটছে। মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করছে। তাঁর দাবি, সাংবিধানিক প্রশ্নে কেন্দ্রীয় সরকার রাজ্যের উপর অবাঞ্ছিতভাবে হস্তক্ষেপ করছে। রাজ্যপালও রাজ্যের বিষয়ে হস্তক্ষেপ করছেন। বিষয়গুলি নিয়ে অধিবেশনে আলোচনার প্রয়োজন রয়েছে বলে জানান বাম পরিষদীয় দলনেতা।


Post a Comment

0 Comments

close