ক্যাপিটল বিল্ডিংয়ে ট্রাম্প সমর্থকদের হামলা

Subscribe Us

ক্যাপিটল বিল্ডিংয়ে ট্রাম্প সমর্থকদের হামলা

 


ওয়েবডেস্ক :-   নজিরবিহীন সংঘর্ষের ঘটল ঘটল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে।  উত্তাল হয়ে উঠল ওয়াশিংটন ডিসি।আমেরিকার কংগ্রেসের ক্যাপিটল বিল্ডিংয়ে হামলা চালালেন ডোনাল্ড ট্রাম্পের সমর্থকরা। কয়েক হাজার সমর্থক ট্রাম্পের সমর্থনে স্লোগান ওই বিল্ডিংয়ে জোর করে ঢুকে পড়ার চেষ্টা করেন। প্রেসিডেন্সিয়াল নির্বাচনে বাজিমাত করার পর জো বিডেনকে জয়ের শংসাপত্র দিতে শুরু হয়েছে মার্কিন কংগ্রেসের যৌথ অধিবেশন।  নির্বাচনে পরাজিত হলেও ক্ষমতা ছাড়বেন না বলে আগেই জানিয়েছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। সমর্থকদের পথে নেমে এই 'কারচুপি' ভরা নির্বাচনের প্রতিবাদ করার জন্য আবেদন জানিয়েছিলেন তিনি। এহেন পরিস্থিতিতে রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় ক্যাপিটল বিল্ডিং চত্বর।ক্যাপিটাল বিল্ডিংয়ে বলপূর্বক ঢুকে পড়েন ট্রাম্প সমর্থকরা। ভাঙা হয় ব্যারিকেড, যাবতীয় নিরাপত্তা বলয়। ভাঙচুর শুরু হয় ক্যাপিটাল বিল্ডিংয়ের অন্দরে।গত কয়েক দশকে তিলে তিলে গড়া মার্কিন গণতন্ত্রে এত বেনজির বিশৃঙ্খলা আর ঘটেনি। তীব্র অশান্তি সামলাতে অস্ত্র হাতে নিতে বাধ্য হয়।এবারের মার্কিন নির্বাচনে ট্রাম্পের ভাগ্যে জুটছে ২৩২ টি ভোট আর বাইডেন পেয়েছেন ৩০৬টি ভোট। অথচ যেদিন থেকে ভোটগণনা এবং নির্বাচনী ফলাফল সামনে এসেছে ট্রাম্প কারচুপির অভিযোগ তুলে এসেছেন। একাধিক মামলা করে বিদায়ী প্রেসিডেন্ট খুব একটা কিছু করে উঠতে পারেননি। এর পরেই বুধবারের একটি জনসভায় ট্রাম্প জিগির তোলেন, আমরা পিছু হটব না।  এরপরেই রাস্তায় নেমে পড়েন ট্রাম্প সমর্থকরা। পরে অবশ্য তাদের শান্ত হওয়ার কথা বলেছিলেন ট্রাম্প ট্যুইটারে। ছোট ভিডিও শেয়ার করে তিনি লেখেন, গো হোম। ভক্তরা তাঁর কথা শোনেনি। কিছুতেই আটকানো যায়নি তাঁদের। ঘটনার তীব্র নিন্দা করছেন গোটা পৃথিবীর রাজনৈতিক মহল।  শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা হস্তান্তরের আবেদন জানান তিনি। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন টুইট করে বলেছেন, 'আমেরিকা কংগ্রেসের ইতিহাসে এটা একটা লজ্জাজনক ঘটনা।' প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট জর্জ বুশ এই ঘটনাকে 'হৃদয়বিদারক এবং ঘৃণ্য' বলে মন্তব্য করেছেন।এই ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। 

Post a Comment

0 Comments

close