প্রৌঢ়াকে খুনের ঘটনায় দোষীর যাব্বজীবন সাজা ঘোষণা করলো বর্ধমান আদালত

Subscribe Us

প্রৌঢ়াকে খুনের ঘটনায় দোষীর যাব্বজীবন সাজা ঘোষণা করলো বর্ধমান আদালত



এক প্রৌঢ়াকে খুনের ঘটনায় আড়াই বছরের মাথায় দোষীর যাব্বজীবন সাজা ঘোষণা করলো বর্ধমান আদালত। সোমবার অভিযুক্ত বাসুদেব রাজবংশীকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়।মঙ্গলবার বর্ধমান আদালতের ফাস্টট্রাক সেকেণ্ড কোর্টের বিচারক অর্জুন মুখার্জি বাসুদেব রাজবংশীর যাব্বজীবন সাজা ঘোষণা করেন।২০১৮ সালের ১৪ মার্চ বাড়ির ভিতর থেকে রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার হয় বাসুবী ব্যানার্জীর। তিনি পূর্ব বর্ধমানের বড়শুলের বাড়িতে একাই থাকতেন।তাঁর একমাত্র ছেলে চন্দন ব্যানার্জী কর্মসূত্রে কলকাতায় থাকেন।মেয়ের বিয়ে হয়েছে জামালপুরে।প্রতি রবিবার চন্দনবাবু বড়শুলের বাড়িতে আসেন।খুন হওয়ার দু'দিন আগে ফুল গাছের চারা বিক্রি করতে যায় বাসুদেব। সেদিনই বাসুবীদেবীর সঙ্গে প্রথম পরিচয় হয় বাসুদেবের। 
বাসুবীদেবী বলেন ছেলে রবিবার বাড়িতে আসবে।ওইদিন এসো ফুলের চারা নিয়ে।এই নিয়ে ছেলে চন্দনের সঙ্গে বাসুদেবের কথা হয় মায়ের মোবাইলে। কিন্তু দু'দিন পর অর্থাৎ ১৪ মার্চ ফের বাসুদেব হাজির হয় বাসুবীদেবীর বাড়িতে। তারপর কিছুক্ষণ দু'জনে মধ্যে কথাবার্তা হওয়ার পর বাসুদেব চা খেতে চায়।বাসুবীদেবী চা করার সময় তাঁকে আক্রমণ করে বাসুদেব।বাসুবীদেবীকে খুন করে তার গায়ে থাকা সোনার অলংকার নিয়ে( প্রায় সাড়ে চারভরি)চম্পট দেয় বাসুদেব। শক্তিগড় থানার পুলিশ খুনের তদন্তে নেমে পূর্বস্থলীর চুপির কাষ্ঠশালি থেকে বাসুদেব রাজবংশীকে গ্রেপ্তার করে।এদিন বাসুদেবের যাব্বজীবন সাজা ঘোষণা করা হয়।

Post a comment

0 Comments