বর্ধমানের নবাবহাট জাতীয় সড়কের পাশে অমানবিক ভাবে চার ঘন্টা ধরে রাস্তার পাশেই পড়ে মৃতদেহ

Subscribe Us

বর্ধমানের নবাবহাট জাতীয় সড়কের পাশে অমানবিক ভাবে চার ঘন্টা ধরে রাস্তার পাশেই পড়ে মৃতদেহ

পূর্ব বর্ধমানের বর্ধমানের নবাবহাটে পঞ্চম দফা ভোটের দিনেই এক অমানবিক ছবি ধরা পড়ল। বর্ধমানের নবাবহাট জাতীয় সড়কের পাশে অমানবিকভাবে চার ঘন্টা ধরে রাস্তার পাশেই পড়ে মৃতদেহ।উত্তরপ্রদেশের গোরক্ষপুর থেকে একটি অ্যাম্বুলেন্সে করে মৃতদেহ নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল নদীয়ায়।মৃত ব্যক্তির নাম প্রকাশ সরকার বয়স( ৩৫)। বাড়ি নদীয়া জেলার ভীমপুর থানার মহেশপুর গ্রামে।মৃত ব্যক্তির প্রতিবেশী  দিপালী সরকার জানান, আমি বিহারে থাকি আমার কাছে ফোন আসে যে প্রকাশ সরকার মানে আমার  দাদা মারা গেছেন দুর্ঘটনায় উত্তরপ্রদেশের গোরক্ষপুরে।আমি তড়িঘড়ি উত্তরপ্রদেশের গোরক্ষপুর  গিয়ে দেখি  মারা গেছেন। আমি একটা অ্যাম্বুলেন্স ভাড়া করি ২৭ হাজার টাকায়।অ্যাম্বুলেন্সে করে নিয়ে আমি দাদাকে নিয়ে যাচ্ছিলাম নদীয়ার মহেশপুরে গ্রামের বাড়িতে। এই অবস্থায় বর্ধমানের ওই অ্যাম্বুলেন্স চালক আমাদেরকে মারধর করে কাগজপত্র ছিনিয়ে নিয়ে মৃতদেহ এ্যাম্বুলেন্স থেকে নামিয়ে পালিয়ে যায়।আমাদের কাছে বাকি টাকা যা ছিল সমস্ত কিছু কেড়ে নেয় ওই অ্যাম্বুলেন্সের চালক, সকাল দশটা থেকে আমরা এইভাবে পড়ে রয়েছি আমাদেরকে কেউ সাহায্য করতে এগিয়ে আসেনি।স্থানীয় এক যুবক জিয়াউর রহমান জানান, আমি দেখতে পাই এই ভদ্রমহিলা মৃত দেহটাকে নিয়ে বসে আছেন। জিজ্ঞাসা করতেই তিনি বলেন তাদেরকে মারধর করে এম্বুলেন্স মৃতদেহ নামিয়ে পালিয়ে যায়। পাশে লরি চালক অংকন পাল বিষয়টি দেখে। আমি তড়িঘড়ি বর্ধমান থানাতে জানাই।আমি চাই এই ভাবে মৃতদেহটি পড়ে না থেকে উনার বাড়ি পৌঁছানোর ব্যবস্থা করুক প্রশাসন।

Post a comment

0 Comments