পাওয়ার প্লান্টের দূষণের জেরে আন্দোলনে নামলেন কুলটির পুরান্ডি আদিবাসী গ্রামের বাসিন্দারা

Subscribe Us

পাওয়ার প্লান্টের দূষণের জেরে আন্দোলনে নামলেন কুলটির পুরান্ডি আদিবাসী গ্রামের বাসিন্দারা

নীলেশ দাস,আসানসোল:- ইমপেক্স পাওয়ার প্লান্টের দূষণের জেরে আন্দোলন শুরু করেছে কুলটি বিধানসভার পুরান্ডি আদিবাসী গ্রামের বাসিন্দারা।বিগত দুদিন ধরে গ্রামের মানুষজন একত্রিত হয়ে দূষণ মুক্ত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।গতকাল গ্রামবাসীরা কারখানার জলের লাইন কেটে দেওয়ার জন্য পাওয়ার প্লান্ট বন্ধ হয়ে যায়।

যার ফলে নড়ে চড়ে বসে ইনপিএক্স কোম্পানি কর্তৃপক্ষ তারা পুলিশ প্রশাসনের সহযোগিতায় গ্রামের মানুষের সাথে বৈঠকে বসেন কিন্তু তাতেও কোনো সুরাহা হলো না গ্রামের মানুষজন নিজের দাবিতে অনড় থাকে।

গ্রামবাসীদের অভিযোগ কারখানার দূষণের জেরে তাদের বসবাস করা কঠিন হয়ে পড়ছে। বাধ্য হয়ে আন্দোলনে নেমেছে গ্রামবাসীরা। তাদের আরো অভিযোগ, ইমপেক্স পাওয়ার প্লান্টের জন্য অতিরিক্ত দূষনের সৃষ্টি হচ্ছে।এই কারখানার দূষণের কালো ডাস্ট উড়ে এসে পড়ছে পানীয় জলে ও খাবারে পড়ছে।আর সেই খাবার খেয়ে গ্রামের বেশ কিছু মানুষের মধ্যে বিভিন্ন রোগের প্রকোপ দেখা যাচ্ছে।

এই সমস্যা সমাধানে শুক্রবার পুরান্ডি গ্রামে মধ্যে এক বৈঠকের আয়োজন করা হয় যে বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন ইনপেক্স কোম্পানির কর্তৃপক্ষ সতীশ সিং। তাছাড়া পুলিশ প্রশাসনের তরফে উপস্থিত ছিলেন এ.সি.পি(কুলটি) ওমর আলী মোল্লা,কুলটি থানার ভারপ্রাপ্ত আধিকারিক,চৌরাঙ্গী ও বরাকর ফাঁড়ির ইনচার্জ।

এদিন কোম্পানি কর্তৃপক্ষ পুরান্ডি গ্রামের মানুষের কাছে ৪৫দিন সময় চান দূষণ নিয়ন্ত্রণ করার জন্য কিন্তু এ কথায় রাজি হননি গ্রামবাসীরা।তারা জানান এই কথা বিগত দশ বছর ধরে ইনপেক্স কর্তৃপক্ষ  বলে আসছে কিন্তু কোনো কাজ হয়নি,তারা এ পাওয়ার প্লান্টটি বন্ধ করে যেমন স্টিল প্লান্ট আগে চলতো তেমনি কারখানা চালু করুক না হলে বন্ধ করে দিক কারখানাটি।গ্রামবাসী দের সঙ্গে কারখানা কর্তৃপক্ষের সঙ্গে মতপার্থক্য হওয়ায় গ্রামবাসীরা বৈঠকটি ছেড়ে চলে যান।

এই প্রসঙ্গে এ.সি.পি(কুলটি) ওমর আলী মোল্লা বলেন আমরা চেষ্টা করে চলেছি এদের বৈঠক করিয়ে এই সমস্যার সমাধান করার।কিন্তু আজ বৈঠকে কোনো সমাধান হয় নি,আমরা চেষ্টা করছি যত তাড়া তাড়ি সম্ভব সমস্যার সমাধান করা যায়।

Post a Comment

0 Comments

close