হতাশ বর্ধমান স্টেশনের হকাররা,সংসার চালানো হয়ে পড়েছে দায়

Subscribe Us

হতাশ বর্ধমান স্টেশনের হকাররা,সংসার চালানো হয়ে পড়েছে দায়

হতাশ বর্ধমান স্টেশনের হকাররা। বর্ধমান রেল ইউনিয়ন কার্যালয়ে নিরাশ হয়ে বসে আছে হকাররা। ইতিমধ্যেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করেছেন,আংশিক লকডাউনের মেয়াদ বৃদ্ধির। সেইসঙ্গে বন্ধ থাকবে লোকাল ট্রেন চলাচল। ইউনিয়নের কার্যালয়ে সার দিয়ে নামানো আছে খালি কেটলি, স্টোভ  চায়ের কাপ, বালতি।  সেইসঙ্গে রাখা আছে  মুড়ির টিন। 

বর্ধমান রেল স্টেশনের  হকার বিপিন রায় বলেন, দীর্ঘ এক বছর ধরে তাদের কোন কাজ নেই। এই অবস্থায় ভেবে ছিলেন ১৬ তারিখ থেকে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হবে। কিন্তু ট্রেন চলাচল করবে না এই খবরে তারা ভেঙে পড়েছেন। বলছেন এই অবস্থায় সংসার চালানো দায় হয়ে পড়েছে। ছেলে বউকে খাওয়াবো কি ভাবে এখন সেটাই চিন্তা। 

রেলওয়ে হকার ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ইনসান আলী বলেন,দীর্ঘ এক বছর চার মাস হকারি সম্পূর্ণ বন্ধ থাকায় করুন অবস্থা হয়েছে আমাদের।তিনি বলেন এই মুহূর্তে বর্ধমানে তেরোশো হকার কাজ করে। তিনি আরো বললেন এই দুর্বিষহ পরিস্থিতিতে ইতিমধ্যে চারজন হকার আত্মহত্যা করেছেন। বাকিদের অবস্থা একই রকম। অনেকেরই সংসার চলছে না। 

এরকম চলতে থাকলে আগামী দিনে তারাও আত্মহত্যার পথ বেছে নিতে বাধ্য হবেন।তিনি আরো বলেন বিভিন্ন জায়গায় সরকারের পক্ষ থেকে হকারদের ২০০০ টাকা করে দেওয়া হয়েছে। রেলওয়ে হকাররা সেই সুবিধা পাচ্ছেন না। তিনি সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, যাতে করে আগামী দিনে রেলের হকাররা এইসব সুবিধা পায়।

Post a Comment

0 Comments

close