পরপর তিনদিন সাংসদ সুনীল মণ্ডলের দলে ফেরার জল্পনা নিয়ে ক্ষোভ উগড়ে দিলেন জামালপুরের তৃণমূল কর্মীরা

Subscribe Us

পরপর তিনদিন সাংসদ সুনীল মণ্ডলের দলে ফেরার জল্পনা নিয়ে ক্ষোভ উগড়ে দিলেন জামালপুরের তৃণমূল কর্মীরা

পরপর তিনদিন সাংসদ সুনীল মণ্ডলের দলে ফেরার জল্পনা নিয়ে ক্ষোভ উগড়ে দিলেন জামালপুরের তৃণমূল কর্মীরা। আজ জামালপুরে তাকে রাবণ সাজিয়ে পড়লো পোস্টার।

সুনীল মণ্ডল ফের তৃণমূলে ফিরবেন এমন জল্পনা তৈরি হতেই শাসক শিবিরে জোরালো হচ্ছে ক্ষোভ বিক্ষোভ ।সাংসদ সুনীল মণ্ডলর বিরোধিতায় বর্ধমান পূর্ব লোকসভা এলাকার তৃণমূল কর্মীদের লাগানো ফ্লেক্সেও ঘটেছে সেই ক্ষোভের বহিপ্রকাশ ।

বিজেপির কেন্দ্র ও রাজ্য নেতাদের মুখমণ্ডল সহযোগে সুনীল মণ্ডলকে ’রাবন রাজনীতিক’ রুপ দিয়ে তৈরি করা হয়েছে ওই ফ্লেক্স ।তাতে সুনীল মণ্ডলকে ’বাংলা ও বাঙালির শত্রু’ বলেও আক্ষা দেওয়া হয়েছে। এমন ফ্লেক্সেই এখন ছায়লাপ জেলার জামালপুর বিধানসভার শুড়েকালনা এলাকা ।যা নিয়ে আলোড়ন পড়ে গিয়েছে রাজনৈতিক মহলে। 

এমনই বেশকিছু ফ্লেক্স শুক্রবার বিকালে শুড়েকালনা বাজার এলাকায় লাগান শাসক দলের কর্মীরা । ।অনেকটা রাবনের অনুকরণেই সুনীলের মুখের বামদিকে এক মুকুটে রাখা হয়েছে  রাজ্য বিজেপি সভাপতি  দিলীপ ঘোষ এবং শুভেন্দু অধিকারী ,সায়ন্তন বসু ও অর্জুন সিং এর মুখের ছবি  । আর একই আঙ্গিকে ডান দিয়ে যাদের মুখ জ্বলজল করছে তারা হলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ এবং কৈলাশ বিজয়বর্গীয় , জে পি নাড্ডা ও যোগী আদিত্য নাথ । 

এই সব নেতাদের ছবির নিচে তাঁদের ’বাংলা ও বাঙালির শত্রু’ বলে আখ্যায়িত করা হয়েছে ।আবার এইসকল বিজেপি নেতারের মুখের ছবির একেবারে  উপরের অংশে লেখা হয়েছে-“কৃষকের শত্রু,আম্বানী-আদানীর কাছে দেশ বিক্রীর ষড়যন্ত্রকারী“।  ছবির একেবারে নিচে আবার তাঁদের কটাক্ষ করে লেখা রয়েছে-“রাজনীতির ব্যাপারী,নীতি আদর্শহীন,গিরগিটি, গদ্দার সুনীল মণ্ডলের তৃণমূলে ঠাঁই নাই “। রাস্তার ধরে ঝোলানো থাকা রাজনৈতিক কটাক্ষে ভরা এমন ফ্লেক্স দেখে পথচারীরাও খানিকের জন্যে থমকে দাঁড়িয়ে পড়ছেন ।

সুনীলকে নিয়ে তাদের আপত্তির কারণ স্পষ্ট করলেন  জেলা তৃণমূলের  সম্পাদক প্রদীপ পাল। তিনি বলেন , তৃণমূলের প্রতীকে ভোটে লড়ে জিতে সুনীল মণ্ডল সাংসদ হয়েছিলেন। অথচ বিধানসভা ভোটের প্রাক্কালে তিনি শুভেন্দু অধিকারীর হাত ধরে  বিজেপিতে যোগ দিয়ে দেন।   বিভিন্ন নির্বাচনী জনসভা থেকে সনীল মণ্ডল তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী সহ তৃণমূল কংগ্রেসের সকল  পদাধীকারীকে কুৎসিত ভাষায় আক্রমণ করে চলেন ।

ভোটের ফল প্রকাশের পর তৃণমূলের নেতা নেত্রীদের বিরুদ্ধে বদলা নেবার হুঁশিয়ারিও প্রকাশ্য জনসভা থেকে দিয়েছিলেন সুনীলবাবু ।কিন্তু ভোটে বিজেপির ভরাডুবির পর এখন সুনীল মণ্ডল ভোলবদল করেছেন। তৃণমূলে ফেরার  জল্পনা জাগিয়ে  সুনীলবাবু সরব হয়েছেন শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে ।দলের কর্মীরা কেউ চান না সুনীল মণ্ডল ফের তৃণমূলে জায়গা পাক।সেই দাবির বিষয়টি তুলে ধরতেই এই অভিনব প্রতিবাদে কর্মীরা নেমেছেন বলে জানান তিনি।

 এমন  কটাক্ষের  বিষয়টি নিয়ে সুনীল মণ্ডলকে ফোন করা হলে তিনি ফোন না ধরায় তাঁর কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি । অন্যদিকে জামালপুর বিধানসভায় বিজেপির আহ্বায়ক জিতেন ডকাল বলেন, 'সুনীল মণ্ডল হলেন নীতি আদর্শহীন ক্ষমতার মধু খাওয়া রাজনীতিক ।বিজেপি বাংলায় ক্ষমতায় আসছে এমন হাওয়া উঠতেই উনি  বিধানসভা ভোটের আগে ’ক্ষমতার মধু ’ ভক্ষনের বাসনা নিয়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন ।বিজেপি জিততে না পারায় তাই এখন উনি শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসে ফের ভিড়ে যাওয়ার জন্য ব্যাকুল হয়ে উঠেছেন । 

জিতেন বাবু বলেন, সুনীল মণ্ডলের মতো নেতা বিজেপিতে থাকুক এটি তিনিও চান না ’। সুনীল মন্ডলের বিরুদ্ধে  তৃণমূল কর্মীরা গত তিনদিন ধরেই সরব। আজ সুর চড়ালেন বিজেপি নেতাও।তবে কি সুনীলবাবুর ভাত ভিক্ষে দুটোই গেল? এটাই রাজনৈতিক মহলে এখন বড় জল্পনা।

Post a Comment

0 Comments

close