১৫দিনের মধ্যেই কিনারা,নাটকীয় মোড় খুনের তদন্তে

Subscribe Us

১৫দিনের মধ্যেই কিনারা,নাটকীয় মোড় খুনের তদন্তে

এক পক্ষকালের মধ্যেই কিনারা।নাটকীয় মোড় খুনের তদন্তে। বিহারের সমস্তিপুর থেকে দুই অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছে পূর্ব বর্ধমান জেলা পুলিশ। অভিযুক্তদের সাথে থাকা একটি গাড়িও আটক করা গেছে। জানা গেছে মৃতের পরিচয়।

গত ১  জুন সন্ধ্যে ৬ টা নাগাদ আউশগ্রাম থানার বড়া চৌমাথা মোড়ে একটি অজ্ঞাতপরিচয় মৃতদেহ ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়ায়। দেহটি নয়ানজুলির পাশে পরেছিল।মৃতের পরনে ছিল সাদা কুর্তা ও পায়জামা। প্রথমে কোভিড আক্রান্তের দেহ মনে হলেও পরে এটি একটি খুনের ঘটনা বলে বোঝা যায়। 

ঘটনার তদন্তে নামে পুলিশ। মৃতের ছবি প্রচার করা হয়। এরপরে এক ব্যক্তি জানায় সে ওই মৃতকে গুসকরা বিট হাউসের কাছে এক হোটেলে দেখেছে।  হোটেল মালিকও ছবি দেখে চিনতে পারে মৃত ব্যক্তিকে।হোটেল মালিক পুলিশকে জানায়, মৃত ব্যক্তি সহ মোট তিনজন তার হোটেলে এসে খাবার খেয়েছিল।  

পুলিশ তদন্তে নেমে ওই বিট হাউস, কয়রাপুর মোড়ের সি সি টি ভি ফুটেজ খতিয়ে দেখে। তাতেই একটি সন্দেহভাজন গাড়ির গতিবিধি স্পষ্ট হয়। পুলিশ এরপর ঝাড়খণ্ডের দিকে পেট্রোল পাম্প ধাবার অনুসন্ধান করতে করতে ভাগলপুরে সূত্র খুঁজে পায়।এভাবেই গাড়িটির সন্ধানের সূত্রও মেলে।এই সূত্রেই গাড়ির মালিকের ৩১ তারিখের রাতে বর্ধমানের দিকে থাকার সম্ভাবনা জোরালো হয়।

বর্ধমান পুলিশ এরপর বিহারের সমস্তিপুর জেলার বিথান থানার এলাকায় অভিযান চালিয়ে গাড়িটিকে আটক করে। একইসঙ্গে দুই অভিযুক্তকেও গ্রেপ্তার করে। এদের নাম পারভেজ আলম, সহিদুল রহমান।তাদের কাছ থেকে মৃতের পরিচয় স্পষ্ট হয়। জানা গেছে, মৃতের নাম মহঃ খালিদ আনোয়ার ওরফে জুগনু। তার বাড়ি বিথান এলাকাতে।

প্রাথমিক তদন্তে উঠে আসে  মৃত ব্যক্তি ঐ এলাকা থেকে ২২ লাখ টাকা নিয়ে পালিয়েছিল। ওই টাকা সে বিভিন্ন ভুট্টা ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে নিয়েছিল। এই খুনের ঘটনার আরো নানা দিকও খতিয়ে দেখছে জেলা পুলিশ।

Post a Comment

0 Comments

close