দুয়ারে সরকারের পর এবার দুয়ারে পুলিশ কর্মসূচি শুরু হল পূর্ব বর্ধমানের ভাতারে

Subscribe Us

দুয়ারে সরকারের পর এবার দুয়ারে পুলিশ কর্মসূচি শুরু হল পূর্ব বর্ধমানের ভাতারে

প্রতিনিধি,পূর্ব বর্ধমান:- পূর্ব বর্ধমান জেলা পুলিশ ও ভাতার থানার পুলিশের উদ্যোগে ভাতারের মাহাতা গ্রাম পঞ্চায়েতের দুধবাগান আদিবাসী অধ্যুষিত এলাকায় শনিবার শুরু হল দুয়ারে প্রশাসন কর্মসূচি। থানা থেকে দূরবর্তী গ্রামগুলির মানুষের অভিযোগ ও সমস্যার কথা জানাতে এই শিবিরের আয়োজন করা হয়। এই গ্রামের প্রায় ৫০ থেকে ৬০ জন মানুষ  শিবিরে হাজির হন তাদের সমস্যা নিয়ে। কেউ পারিবারিক সমস্যা, কেউ জরুরী  নথিপত্র হারিয়ে যাওয়া নিয়ে ডায়েরি করলেন, কেউ বা আবার রাস্তার সমস্যা নিয়ে অভিযোগ পত্র জমা দিলেন। 

এই শিবিরে উপস্থিত ছিলেন পূর্ব বর্ধমান জেলার ডিএসপি (ডিআইবি) বীরেন্দ্র কুমার পাঠক, সার্কেল ইন্সপেক্টর (A)সাধন বন্দ্যোপাধ্যায় ,ভাতার থানার ওসি প্রণব কুমার বন্দোপাধ্যায় সহ অন্যান্য পুলিশকর্মীরা। 

ডিএসপি (ডিআইবি) বীরেন্দ্র কুমার পাঠক জানিয়েছেন, ভাতার থানা থেকে মাহাতা দুধ বাগান  এলাকা প্রায় ৩০ কিলোমিটার দূরত্ব। এই এলাকার অনেক মানুষ এতটা দূরত্ব পেরিয়ে সব সময় থানা যেতে পারতেন না। দুয়ারে পুলিশ কর্মসূচিতে এদিন গ্রামের বহু মানুষের সমস্যা অভাব-অভিযোগ গ্রহণ করেছে। এই কর্মসূচির ফলে একদিকে যেমন সাধারণ মানুষের সঙ্গে পুলিশের সুসম্পর্ক তৈরি হবে। তেমনি যেকোনো অভাব-অভিযোগ নিয়ে নিজের এলাকায় তারা পুলিশের কাছে পৌঁছাতে পারবে । 

এই কর্মসূচির মাধ্যমেই মানুষের সমস্যা-অভিযোগ শুনতে একেবারে মানুষের কাছে পৌঁছে যাবেন আইন রক্ষকরা। সাধারণ মানুষের অভিযোগের কথা শুনে পুলিশ তা নথিভুক্ত করবে। পাশাপাশি কোভিডের তৃতীয় ঢেউ নিয়েও পুলিশ কর্মীরা জনগণকে সচেতন করবেন।'দুয়ারে পুলিশ' কর্মসূচির মাধ্যমে জনসংযোগ বাড়বে বলে মত পুলিশ কর্তাদের। 

পূর্ব বর্ধমানের ১৬টি থানার অনেক এলাকা সমস্যাসঙ্কুল বলে মনে করেন পুলিশ কর্তারা। নানা কারণে ওইসব সমস্যাসঙ্কুল এলাকার বাসিন্দারা পুলিশের কাছ পর্যন্ত পৌঁছাতে পারে না। সেইসব এলাকার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ও মানুষজনের সমস্যা বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ এই কর্মসূচির মাধ্যমে যাতে করা যায় সেই ব্যাপারে পরিকল্পনা নেওয়া হচ্ছে। পাশাপাশি যথাযথ আইনানুগ পদক্ষেপ নিয়েও অভিযোগকারীকে পুলিশ সাহায্য করতে পারবে। 

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কল্যাণ সিংহরায় বলেন আজ থেকে শুরু হয়েছে দুয়ারে পুলিশ ক্যাম্প। প্রতিটি থানার নির্দিষ্ট এলাকায় সময় নির্দিষ্ট করে এই শিবিরগুলি করা হবে। শিবির করার আগে ওই এলাকায় প্রচার করা হবে। শিবিরে সংশ্লিষ্ট থানার আইসি অথবা ওসি ছাড়াও আধিকারিকরা থাকবে।  দুয়ারে পুলিশ কর্মসূচির মাধ্যমে তথ্য সংগ্রহের পর পরবর্তী পরিকল্পনা গ্রহন করা হবে। সপ্তাহে একদিন নির্দিষ্ট এলাকা ধরে শিবির করা হবে।এতে বহু মানুষ উপকৃত হবেন বলে তিনি জানান।

Post a Comment

0 Comments

close